এক ফেরী সার্ভিসে সড়ক যোগাযোগে নতুন সুচনা

Spread the love

নাগরিক রিপোর্ট : মেঘনা ও শাখা নদীবেষ্টিত হওয়ায় বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা মুল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন জনপদ। যে কারনে এ উপেেজলাতে সড়কপথে যাতায়াতের একমাত্র ভরসা নৌপথ। সড়কপথে যান্ত্রিক যানে দেশের মুল ভুখন্ডে যাতায়াত এ উপজেলাবাসীর কাছে কাছে যেন স্বপ্ন। মেঘনায় একটি ফেরী স্থাপনের মাধ্যমে এ স্বপ্নে আশার আলো দেখা দিয়েছে।

মেঘনা তীরের আরেক উপজেলা হিজলার পুরাতন হিজলা পয়েন্ট থেকে মেহেন্দীগঞ্জের দাদপুর পয়েন্টে ফেরী সার্ভিস চালু হওয়ায় রাজধানীসহ দেশের যেকোন স্থান থেকে সড়কপথে মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায় যাতায়াত করা যাবে। সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) এ ফেরী সার্ভিস সোমবার রাতে উদ্বোধন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ফেরীটি স্থাপনে আপাতত মেহেন্দীগঞ্জের ব্যবসায়ীরা পণ্য পরিবহনে বেশী সুবিধাভোগী হবেন। এই ফেরী সার্ভিস চালুর মাধ্যমে মেহেন্দিগঞ্জের সঙ্গে সড়কপথ যোগাযোগের সুচনা ভবিষ্যতের উজ্জল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ফেরীতে যানবহন পারাপর যত বাড়বে, সড়ক উন্নয়ন আরও দ্রুত বাস্তবায়ন হবে।
সওজ ফেরী বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশিকুল ইসলাম জানান, পুরাতন হিজলা ও দাদপুর পয়েন্টে চলাচলের জন্য আপাতত দুটি ফেরী দেয়া হয়েছে। সওজ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে সোমবার রাতে স্থানীয় সাংসদ পংকজ দেবনাথ ফেরীটি উদ্বোধন করেন। নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে পৌছতে ফেরীতে সময় লাগবে ৫০ মিনিট থেকে সর্বোচ্চ একঘন্টা। একেকটি ফেরীতে ৯টি ভারি যানবহন (যাত্রীবাহি বাস ও পণ্যবাহি ট্রাক) পাড় করা যাবে। আপাতত নির্ধারিত সময় মেনে ফেরী চলাচল করবে।

মেহেন্দিগঞ্জের পাতারহাট বন্দরের ব্যবসায়ী মো. সুমন জানান, নদীবেষ্টিত হওয়ায় মেহেন্দীগঞ্জ, মুলাদী ও হিজলা উপজেলা জেলা শহর বরিশালের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। প্রায় ১৫ বছর আগে আড়িয়াল খাঁ নদের বাবুগঞ্জের মীরগঞ্জ পয়েন্টে ফেরী স্থাপিত হওয়ায় মুলাদী ও হিজলার সঙ্গে জেলা শহরের সড়ক যোগাযোগ স্থাপন হয়। বরিশাল নগর থেকে হিজলা পর্যন্ত বাস সার্ভিসও চালু হয়েছে। বঞ্চিত ছিল শুধু মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা। মেঘনা নদীতে ফেরী সার্ভিস চালু হওয়ায় এখন হিজলা থেকে মেহেন্দীগঞ্জ পর্যন্ত সড়ক পরিবহনে যাতায়াতের দ্বার উম্মোচন হলো।

মেহেন্দীগঞ্জের পাতারহাট বন্দর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি এছাহাক আলী খান ও সভাপতি সরোয়ার আলম আজাদ বলেন, মেহেন্দীগঞ্জের উপজেলা সদর পাতারহাট বন্দর দক্ষিণাঞ্চলের অন্যতম বৃহৎ ব্যবসায়ীক মোকাম। এখানকার ব্যবসায়ীরা পণ্য আনা-নেওয়ায় একমাত্র নৌপথের ওপর নির্ভরশীল। হিজলা থেকে দাদপুর পয়েন্টে ফেরী সার্ভিস চালূ হওয়ায় ব্যবসায়ীরা এখন দেশের যেকোন এলাকা থেকে যানবহনে পণ্য আনা-নেওয়া করতে পারবেন।

এই দুই ব্যবসায়ী নেতা জানান, দাদপুর থেকে পাতারহাট বন্দর পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার সড়ক মাত্র ১২ ফুট প্রশস্ত হওয়ায় ভারি যানবহন চলাচলের অনুপযোগী। সড়কটি প্রশস্ত করা হলে ফেরী সার্ভিসের গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাবে। বরিশাল নগর থেকে মেহেন্দীগঞ্জ পর্যন্ত যাত্রীবাহি বাস সার্ভিসও চালুর সম্ভাবনা থাকবে।

সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ বলেন, মেহেন্দীগঞ্জের সঙ্গে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপনে হিজলা-দাদপুর পয়েন্টে একটি সেতু স্থাপনের জন্য ডিও লেটার মন্ত্রাণালয়ে দিয়েছেন। তাছাড়া বর্তমান সড়কটি প্রশস্ত করার জন্য পদক্ষেপ নিবেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *